নতুন ব্লগে দ্রুত গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়। এডসেন্সে এপ্রুভাল গাইডলাইন 2021

নতুন ব্লগে দ্রুত গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়। এডসেন্সে এপ্রুভাল গাইডলাইন 2021


গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়
গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়


গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

একজন নতুন ব্লগার হিসাবে, যদি আপনি আপনার ব্লগকে অর্থ উপার্জনকারী ব্লগে রূপান্তর করতে চান , তাহলে গুগল এডসেন্স হল সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং বিশ্বস্ত বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক যা আপনি আপনার ব্লগে  মনিটাইজেশন জন্য ব্যবহার করতে পারেন ।



প্রত্যেক নতুন ব্লগার এডসেন্স দিয়েই কিন্তু তাদের ব্লগ মনিটাইজেশন করতে চায়, এবং তাদের মধ্যে অনেকেই গুগল অ্যাডসেন্স এর নীতি বা পলিসি গুলো  সঠিক ভাবে না মানার কারণে অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পেতে ব্যর্থ হয়।


তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি।গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য এডসেন্স আবেদন করার পূর্বে ও পরে কী কী করতে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আজকের পোস্ট পড়লে আপনি "গুগল এডসেন্স  পাওয়া উপায়" সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।


গুগল এডসেন্স  পাওয়া উপায়

আপনি যদি কিছু মৌলিক নিয়ম মেনে চলেন এবং আপনার ব্লগটিকে আপনি প্রফেশনাল ভাবে নিয়ে কাজ করেন, পাশাপাশি আজকের শেয়ার করার টিপস গুলো যদি সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার নতুন ব্লগে গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাবেন ।


এই পোস্টে, আমি আপনাকে কিছু "গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল কৌশল" এবং "গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করার আগে  করণীয়" ৬ টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস শেয়ার করব! 


তাহলে চলুন শুরু করা যাক।


গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য কত জন ট্রাফিক প্রয়োজন?


অ্যাডসেন্সে আবেদন করার জন্য প্রকৃত ট্রাফিকের ন্যূনতম কোন সীমা নেই। নির্দিষ্ট সংখ্যক ভিজিটর  থাকতে হবে এমন কোন নির্দিষ্ট নিয়ম নেই গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য।অন্যান্য বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কগুলির মতো, গুগলের ন্যূনতম ট্র্যাফিক থ্রেশহোল্ড নেই যা আপনাকে পূরণ করতে হবে।


যদিও গুগল বলছে, ট্রাফিকের সংখ্যা গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন ফ্যাক্টর নয় , তবে আমার ব্যক্তিগত মতামত  অনুসারে, আমি মনে করি এডসেন্সে এপ্লাই করার আগে কিছু ট্রাফিক থাকা ভালো। এতে ব্লগে গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভ পাওয়া অনেকটা সহজ হয়ে যায়।




আপনার ব্লগে যদি ভালো পরিমাণ এর ট্র্যাফিক না থাকে তবে আপনি আপনার ব্লগ থেকে বেশি ইনকাম করতে পারবেন না। কারণ অ্যাডসেন্স থেকে ইনকাম করার জন্য আপনার ব্লগে প্রচুর পরিমাণে ট্রাফিক থাকতে হবে। অন্যথায় এডসেন্স থেকে টাকা আয় সম্ভাব না।


সুতরাং, যদি আপনি একজন  Beginner ব্লগার হন তবে আমি আপনাকে আপনার ব্লগে টার্গেটকৃত ট্র্যাফিক পেতে Pinterest ব্যবহার করার পরামর্শ দিব কারণ এখান থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এবং Google থেকে বিনামূল্যে অর্গানিক ট্রাফিক পেতে SEO উপর প্রচুর পরিমাণে কাজ করতে বলবো। যখন আপনার ওয়েবসাইটের রেংক করবে তখন এমনিতেই আপনার ওয়েব সাইটের ভিজিটর পেয়ে যাবেন।



গুগল অ্যাডসেন্সে আবেদন করার আগে আপনাকে যা করতে হবে


1. উচ্চ মানের এবং পর্যাপ্ত কনটেন্ট লিখুন


আপনার ব্লগ অন্য কোনো ওয়েবসাইট বা ব্লগ থেকে কোনরকম আর্টিকেল  চুরি বা কপি পেস্ট করে পাবলিক করা যাবে না। আপনার টার্গেটকৃত ট্রাফিকের জন্য সব সময় চেষ্টা করবেন ভালো মানের তথ্যমূলক বিশ্বাসযোগ্যতা এবং মূল্যবান কন্টাক্ট লেখার।


সেই কন্টাক্টগুলো হতে হবে অবশ্যই 800 থেকে 900 শব্দের উপরে। গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কনটেন্ট। তাই অ্যাডসেন্সে আবেদন করার আগে আপনার ব্লগে অবশ্যই 25 থেকে 30 টি কনটেন্ট রাখতে হবে। এবং প্রতিটি পোস্টে এক বা ততোধিক ছবি ব্যবহার করতে হবে। 


পাশাপাশি খেয়াল রাখতে হবে ছবিগুলো যেন ইউনিক হয়। অনেকেই দেখা যায় গুগোল এবং ফেসবুক থেকে ছবি ডাউনলোড করে তাদের ব্লগে আপলোড করে দেয়। এই কাজটা করা যাবে না। আপনার ব্লগে যে ছবিগুলো আপলোড করবেন সেগুলো অবশ্যই আপনার নিজের হতে তৈরি অথবা কপিরাইট মুক্ত ইমেজ হতে হবে।


সুতরাং, গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করার আগে নিশ্চিত করুন যে আপনার ব্লগে কিছু পরিমাণ ভালো মানের কনটেন্ট রয়েছে রয়েছে। তাহলে খুব সহজে গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পাবেন।


2. আপনার ব্লগ পোস্ট গুলোতে ভালোভাবে এসিও করুন


মেটা ডেসক্রিপশন, মেটা ট্যাগ গুলো দিয়ে আপনার ব্লগে পোষ্ট গুলোকে সুন্দরভাবে সাজানো এবং সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজ করা উচিত।  


গুগল এডসেন্স ক্রলার বট ব্যবহার করে আপনার সম্পূর্ণ সাইট চেক করতে পারে, কারণ এডসেন্স টিমের পক্ষে শত শত ওয়েবসাইট ভিজিট করা এবং পর্যালোচনা করা সম্ভব নয় যারা তাদের ওয়েবসাইটে এডসেন্স অনুমোদনের জন্য আবেদন করেছে। তাই আপনার কনটেন্ট গুলোতে যদি ভালো মতো এসিও করেন তাহলে গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে এটি একটি প্লাস পয়েন্ট হিসেবে কাজ করবে।


আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেন, তাহলে সহজেই সার্চ ইঞ্জিনের জন্য আপনার ব্লগের বিষয়বস্তু সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজ বা এসিও করার জন্য বিনামূল্যে ইয়োস্ট এসইও প্লাগইন ইনস্টল করতে পারেন।


এই সহজ কৌশলগুলো আপনার ওয়েবসাইটকে  গুগলে রেংক করাতে  সহায়তা করবে। এর ফলে অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভে হওয়ার চান্স অনেকটা বেড়ে যায় পাশাপাশি এখান থেকে আপনি প্রচুর পরিমাণে অর্গানিক ট্রাফিকও পেয়ে যাবেন।


3. আবশ্যিক পেজ গুলো তৈরি করুন



কিছু গুরুত্বপূর্ণ পেজ রয়েছে  যা আপনার ব্লগে অ্যাডসেন্স এপ্রুভ পাওয়ার জন্য অবশ্যই থাকতে হবে। এই পেজ গুলো হচ্ছে:


  • About
  • Contact us 
  • Privacy policy
  • Terms and condition


About : এই পেজে আপনার ওয়েবসাইট এবং ওয়েবসাইটের লেখক দের সম্পর্কে বিস্তারিত লিখতে হবে। যাতে ওই লেখাটি পড়ে যে কেউ আপনার ওয়েবসাইট কি ধরনের, এখানে কি কি কনটেন্ট প্রকাশ করা হয় এবং এটি কারা  পরিচালনা করে সেই বিষয়ে খুব সহজেই যেন একটি পরিষ্কার ধারণা পায়।


Contact us: এখানে আপনার সাথে পাঠকদের বা ভিজিটর দের যোগাযোগ করার কোন মাধ্যম দিয়ে দিতে হবে। সেটি হতে পারে কন্টাক্ট ফর্ম, ইমেইল এড্রেস, ফোন নাম্বার, ফেসবুক পেইজ এর লিংক ইত্যাদি ইত্যাদি। 


Privacy policy: এই পেজে আপনাকে কিছু বিষয়ে ইউজারকে ক্লিয়ার করতে হবে। অর্থাৎ আপনি ইউজারের ডাটা কিভাবে কালেক্ট করছেন, কেন কালেক্ট করছেন, সেই ডাটা গুলো কিভাবে ব্যবহার করবেন সে বিষয়ে লিখে দিতে হবে।





4. আপনার বয়স অবশ্যই ১৮ হতে হবে


গুগোল তাদের এডসেন্সের নিয়ম ও শর্তাবলী স্পষ্টভাবে বলে দিয়েছি যে তারা শুধুমাত্র 18 বছরের বেশি বয়সী আবেদনকারীদের আবেদন গ্রহণ করে। এক্ষেত্রে আবেদন করার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার বয়স 18 বা তার বছর বেশি হয়েছে কি না। অন্যথায় আপনার এডসেন্স অ্যাপ্রুভ হবে না।


যদি আপনার বয়স 18 বছরের কম হয়, আপনি আপনার বাবা -মা বা অভিভাবককে জিজ্ঞাসা করতে পারেন এবং তাদের তথ্য ব্যবহার করে অ্যাডসেন্সের জন্য সাইন আপ করতে পারেন।




5. কপিরাইটমুক্ত ছবি ব্যবহার করুন


যেটা আগে বললাম আপনার ওয়েবসাইটে প্রতিটা পোস্ট অবস্যই ইউনিক থাকতে হবে কোথাও থেকে কপি পেস্ট করা যাবে না। সেই সাথে ওই পোস্টগুলোতে ব্যবহার করা ইমেজগুলো অবশ্যই কপিরাইট মুক্ত হতে হবে।


আপনি যদি গুগল ফেসবুক অথবা অন্য কারো ওয়েবসাইট থেকে ছবি ডাউনলোড করে আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাবেন না। আপনার ব্যবহার করা ছবিগুলো অবশ্যই কপিরাইট মুক্ত হতে হবে। আপনি হয়তো ভাবতে পারেন কপিরাইটমুক্ত ছবি কোথায় পাব। চিন্তা নেই নিচে দেওয়া এই ওয়েবসাইট গুলো থেকে আপনারা কপিরাইটমুক্ত ইমেজ ডাউনলোড করতে পারবেন ফ্রিতে।


কপিরাইটমুক্ত ছবি ডাউনলোডের অনেক ওয়েবসাইটের মধ্যে থেকে  বাছাই করা সেরা ১০ সাইট । 




6. ইউজার ফ্রেন্ডলি এবং প্রফেশনালি সুন্দর ভাবে ওয়েবসাইট ডিজাইন করুন

   


ভিজিটরদের আপনার ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ পৃষ্ঠাগুলি সহজে খুঁজে পেতে একটি পরিষ্কার ন্যাভিগেশন মেনু সহ একটি ইউজার ফ্রেন্ডলি সাইট ডিজাইন করা উচিত ।


আপনি যদি ব্লগার অথবা ওয়াডপ্রেস ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে আপনি সহজেই একটি ভালো মানের থিম ব্যবহার করে  প্রফেশনাল ভাবে আপনার ব্লগ সাইট ডিজাইন করতে পারেন।



গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন 

উপরে উল্লিখিত সমস্ত টিপস অনুসরণ করে সেগুলো আপনার ব্লগে সঠিকভাবে এপ্লাই করে আপনি গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারেন। বিড়ি নিয়মগুলো সঠিক এবং পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে কাজে লাগান তবে দ্রুত আপনার নতুন ব্লগের জন্য অ্যাডসেন্স অনুমোদন পেতে পারেন।


গুগল এডসেন্সে আবেদন  করার জন্য, গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য সাইন আপ পৃষ্ঠায় যান এবং আপনার ওয়েবসাইটের বিবরণ, যোগাযোগের তথ্য ইত্যাদি প্রবেশ করে আবেদন করুন।


গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করার সময় অবশ্যই মনে রাখবেন যে,আপনি আপনার আসল নাম, একটি আসল ঠিকানা এবং একটি সঠিক প্রদানকারীর  নাম ব্যবহার করছেন।



গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন প্রক্রিয়া



একবার আপনি গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য সাইন আপ করলে, আপনাকে আপনার ব্লগে অ্যাডসেন্স কোড যুক্ত করতে হবে। চূড়ান্ত অনুমোদন প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিজ্ঞাপন ফাঁকা হিসাবে দেখানো হবে। চূড়ান্ত পর্যালোচনা এবং অনুমোদনের জন্য  1 থেকে 2 সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।


যদি আপনার ব্লগে গুগল এডসেন্স অনুমোদন দিয়ে দেয় তাহলে , আপনি একটি নিশ্চিতকরণ ইমেল পাবেন অনেকটা এরকম যে  "yousitename.com" এখন অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য প্রস্তুত।'


হ্যাঁ, এখন আপনি আপনার সাইটে  বিজ্ঞাপন যোগ করতে পারেন। কয়েক ঘন্টার মধ্যে, আপনি প্রাসঙ্গিক বিজ্ঞাপন দেখতে শুরু করবেন এবং আপনার অ্যাডসেন্স অনুমোদিত ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে আর্নিং শুরু করতে পারবেন।


এরপর আপনার ইনকাম $10 এ পৌঁছে গেলে, অ্যাডসেন্স আপনার দেওয়া ঠিকানায় একটি ঠিকানা যাচাইকরণ পিন বা এডসেন্স ভেরিফিকেশন পিন পাঠাবে। যখনই পনটি আপনি হাতে পাবেন তখন আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টে লগইন করি এই পিনটি দিয়ে এডসেন্স একাউন্ট ভেরিফিকেশন করে নিতে হবে।




উপরের প্রতিটা টিপস যদি আপনি সঠিকভাবে ফলো করেন তাহলে মনে করুন আপনি গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন প্রক্রিয়ার সমস্ত ধাপ সম্পন্ন করেছেন । এরপর যখন আপনার ইনকাম $100 হবে  তখন  এগুলো আপনি আপনার ব্যাংকে ট্রান্সফার করে নিতে পারবে।


আপনি যদি উপরে উল্লিখিত নিয়মগুলি অনুসরণ করতে পারেন তবে আপনি অবশ্যই খুব অল্প সময়ের মধ্যে গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাবেন।





1 মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন
নবীনতর পূর্বতন

Mobile recent

Billboard Ad